চিকিৎসকদের রোববার ‘প্রাইভেট প্র্যাকটিস’ বন্ধ রাখার আহ্বান

0
2
BMA-Protest-

বিএমএ সভাপতি মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন শনিবার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন,  পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী রোববার চিকিৎসকরা ব্যক্তিগত চেম্বারে রোগী দেখবেন না। তবে এ সময় ক্লিনিক ও বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে জরুরি চিকিৎসা সেবা দেওয়া হবে।

গত ১৮ মে রাজধানীর সেন্ট্রাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীর মৃত্যুর পর ওই হাসপাতালে ভাঙচুর করে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা। পরে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে একটি মামলা করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

এ ঘটনার পর কর্মবিরতি এবং কর্মস্থলে কালোব্যাজ ধারণসহ মাসব্যাপী আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করে বিএমএ। ওই ঘটনায় সেন্ট্রাল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সঙ্গে সমঝোতায় এলেও নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করে বিএমএ।

‘চিকিৎসক ও চিকিৎসা সেবা প্রতিষ্ঠানে হামলা-ভাঙচুরের প্রতিবাদ এবং নিরাপদ কর্মস্থলের দাবিতে’ গত ২৮ মে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কার্যকরী পরিষদের জরুরি সভায় নতুন কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত হয়।

গত ১১ জুন এই কর্মসূচির ঘোষণা দিয়ে বিএমএ’র সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সাম্প্রতিক সময়ে ৭৩ জন চিকিৎসক ‘সন্ত্রাসী হামলার’ শিকার হয়েছেন। এছাড়া শতাধিক হাসপাতাল ও চিকিৎসা সেবাকেন্দ্র ভাংচুর করা হয়েছে।

“কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য যে আজ পর্যন্ত চিকিৎসক ও চিকিৎসা সেবা প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে নিরবচ্ছিন্ন স্বাস্থ্য সেবাদানে তেমন কোনো ভূমিকা রাখা হয়নি।

“চিকিৎসকরা দেশের মানুষকে হাসিমুখে চিকিৎসা সেবা দিতে বদ্ধপরিকর। কিন্তু চিকিৎসা সেবা প্রতিষ্ঠানে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা না থাকা এবং রোগ নির্ণয়ে প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ও প্রযুক্তির অভাবে চিকিৎসকরা ইচ্ছা থাকলেও সেবা প্রদান করতে পারছেন না।”

নিরাপত্তার স্বার্থে চিকিৎসকরা রাজপথে নামতে বাধ্য হয়েছে দাবি করে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দ্রুত দাবি মানা না হলে ঈদের পর আরও কঠোর আন্দোলন কর্মসূচি দেবে বিএমএ।

আগামী ৩ জুলাই বিএমএর কার্যকরী পরিষদের বর্ধিত সভায় আলোচনা করে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলেও জানিয়েছে সংগঠনটি।

এর আগে গত ২৩ মে সারা দেশে চিকিৎসকদের ‘প্রাইভেট প্র্যাকটিস’ বন্ধ রাখার কর্মসূচি দেয় বিএমএ। এছাড়া গত ২১ মে থেকে ২৫ মে পর্যন্ত চিকিৎসকরা কর্মক্ষেত্রে কালোব্যাজ ধারণ করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here