জেলা গোয়েন্দা পুলিশ কর্তৃক সেনাবাহিনীর চাকুরীচূত্য সদস্য গ্রেফতার, টাকা ও সনদ পত্র উদ্ধার

0
13
senabahini khulna

জেলা গোয়েন্দা পুলিশ, খুলনা কর্তৃক সেনাবাহিনীর চাকুরীচূত্য সদস্য গ্রেফতার পরবর্তী অভিযানে আত্মসাৎকৃত ৬,৮৯,০০০/= টাকা ও প্রার্থীদের শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ পত্র উদ্ধার। সূত্র ঃ ফুলতলা থানার মামলা নং-১৬ তারিখ-২৭/০২/২০১৮ ধারা-৪০৬/৪১৯/৪২০/৪৭৩ পেনালকোড।

ঘটনার সংক্ষিপ্ত বিবরনঃচাকুরীচ্যুত সেনা সদস্য ফারুক হোসেন (৩০) (সেনাবাহিনীরচাকুরীচুত্য সেনা সদস্য ৪৫০৬৯৬৩) পিতা-আঃ ছাত্তার, সাং-বুড়িরচর, থানা-মঠবাড়িয়া, জেলা-পিরোজপুর, বর্তমান সাং-নিশচিন্তপুর, থানা-বাঘারপাড়া,জেলা-যশোর কে জিজ্ঞাসাবাদ করে তাকে নিয়া জেলা গোয়েন্দা শাখা খুলনা এরবিশেষ টীম পুলিশ পরিদর্শক (নিরস্ত্র)জনাব গোপাল চন্দ্র রায় এর নেতৃত্বে এসআইমোঃ আলীমুজ্জামান, এসআই অর্জুন কুমার দাস সহ সংগীয় অফিসার ফোর্সঅভিযান পরিচালনা করে তার ভাড়া বাসা কোতয়ালী থানা যশোর এর সদুল্যপুর প্রফেসারইসমাইল হোসেন এর বাড়ী থেকে সেনাবাহিনির চাকুরীর ভূয়া নিয়োগপত্র প্রদানেরমাধ্যমে আত্মসাৎকৃত টাকার মধ্যে ৪,৮৯,০০০/=নগদ টাকা এবং ইসলামী ব্যাংকলিঃ যশোর শাখা এর অনুকুলে ফারুক হোসেনের নামে জমাকৃত ২,৪০,০০০/= টাকারএফ ডি আর ,

যাহা ৬ মাস মেয়াদী স্থায়ী সঞ্চয়পত্র এবং অপর এক অভিযানে ফারুকেরদুলাভাই ৩নং আসামি সালাম পিং-মৃত মোদাচ্ছের সাং-নিত্যনন্দপুর, থানা-বাঘারপাড়া, জেলা-যশোর এর বাসা থেকে প্রার্থীদের শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ পত্র ওজম্ম সনদের মূল কপি উদ্ধার করা হইয়াছে, আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদ শেষে রিমান্ডেরআবেদন সহ বিজ্ঞ আদালতে প্রেরন করিলে বিজ্ঞ আদালত, রিমান্ড শুনানী শেষে আসামিফারুক ও শরিফুলদের ১ দিনের পুলিশ রিমান্ড মঞ্জুর করেন আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদঅব্যহত আছে।

উক্ত আসামি দ্বয় চাকুরীচ্যুত সেনা সদস্য প্রতারক চক্রের সদস্যতারা পরস্পর তাদের সহযোগী অন্যান্য সদস্যদের নিয়ে কমলমতী মানুষেরসেনাবাহিনীতে নিয়োগের প্রলোভন দেখিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করে আসছেমর্মে প্রাথমিক তদন্তে প্রকাশ পাইয়াছে। অত্র মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই (নিঃ) মোঃ আলীমুজ্জামান জেলা গোয়েন্দা শাখা, খুলনা। অত্র মামলার তদন্ত ওঅভিযান অব্যহত আছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here