পানির ওপর উঠে আসছে পদ্মা সেতু

0
3
pdm

হ্যামার জটিলতায় প্রায় ২৫ দিন বন্ধ থাকার পর গত শুক্রবার রাত থেকে পদ্মার তলদেশে পাইল বসানো শুরু হয়েছে। ৩৬ নম্বর পিলারের পাইল স্থাপন করছে দুই হাজার ৪০০ কিলোজুল ক্ষমতার একটি হ্যামার। এই হ্যামার মেরামতের প্রয়োজনে পাইল বসানো এই কয়েক দিন বন্ধ ছিল। জানা যায়, এ পর্যন্ত যতগুলো পাইল বসানো হয়েছে, কয়েকটি বাদে এগুলোর সবই করেছে এই জার্মান হ্যামার।

তিন হাজার কিলোজুল ক্ষমতার বিশ্বের সবচেয়ে বড় হ্যামার মাওয়ায় এলেও মাত্র তিনটি পাইল বসানোর পর বিকল হয়ে যায়, যা এখনো মেরামত চলছে। সেতুর কাজ এগিয়ে নিতে জরুরি ভিত্তিতে এক হাজার ৯০০ কিলোজুল ক্ষমতার আরো একটি জার্মান হ্যামার আনা হচ্ছে। ২২ জুলাই সিঙ্গাপুর থেকে রওনা হয়ে হ্যামারটির ৩০ জুলাই মোংলা বন্দরে পৌঁছার কথা। গত শুক্রবার রাতে পদ্মা সেতু কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করে যে হ্যামারটি বঙ্গোপসাগরে এসে পৌঁছেছে। ৩ আগস্ট এটি মাওয়ায় পৌঁছার কথা রয়েছে। সব কিছু ঠিক থাকলে আগস্টের প্রথম সপ্তাহের মধ্যেই এর ব্যবহার শুরু হবে। এ ছাড়া উচ্চ ক্ষমতার (সাড়ে তিন হাজার কিলোজুল) হ্যামার জার্মানিতে তৈরি করা হচ্ছে।

আগামী নভেম্বরে এটির আসার কথা রয়েছে।সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলীরা জানিয়েছেন, শুধু হ্যামার সংকটের কারণে মূল সেতুর কাজে কিছুটা বিলম্বিত হচ্ছে। এর আগে দুই হাজার কিলোজুল ক্ষমতার একটি হ্যামারও বিকল হয়ে যায়। মূল সেতুর ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ কম্পানি সাধ্যমতো চেষ্টা চালালেও হ্যামারের বিষয়ে বেশ চ্যালেঞ্জে রয়েছে। একের পর এক হ্যামার আনা হলেও আশানুরূপ ফল মিলছে না। তাই এ ব্যাপারে বিশেষ গুরুত্বারোপ করা হচ্ছে। নির্দিষ্ট সময়ে সেতুর কাজ সম্পন্ন করার লক্ষ্যে হ্যামারকে এখন বিশেষ টার্গেটে রাখা হয়েছে।

এদিকে সেতুর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর পিলারের ওপরের লেয়ারে কংক্রিট দেওয়া সম্পন্ন হয়ে গেছে। গত ২৩ জুলাই ৩৮ এবং ১৭ জুলাই ৩৭ নম্বর পিলারের বেইস কংক্রিটিং সম্পন্ন হয়। গত শুক্রবার রাতে কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করে, ২৮ দিনের মধ্যে এই পিলার দুটির কাজ পুরোপুরি সম্পন্ন হবে। এর পরই সেপ্টেম্বরে পদ্মা সেতুর প্রথম স্প্যানটি (সুপারস্ট্রাকচার) স্থাপন করা সম্ভব হবে। এদিকে ২৩ জুলাই পদ্মা সেতুর ১০ নম্বর স্প্যান চীন থেকে সমুদ্রপথে রওনা হয়েছে। আগস্টের মাঝামাঝি এটি মাওয়ায় এসে পৌঁছবে।

এরই মধ্যে জাজিরা প্রান্তের ভায়াডাক্টের (সংযোগ সেতুর) ১৩৬টি পাইল স্থাপন হয়ে গেছে। আগস্টে মাওয়া প্রান্তের সংযোগ সেতুর এই কাজ শুরু হবে।

এদিকে পদ্মা সেতুর বাকি ১৪টি পিলারের চূড়ান্ত ডিজাইন নিয়ে ব্রিটিশ পরামর্শক প্রতিষ্ঠান কাজ করে যাচ্ছে। প্রতিষ্ঠানটির উচ্চপর্যায়ের তিনজন বিশেষজ্ঞ সরেজমিন পর্যবেক্ষণ করে গেছেন। এখন ডিজাইনের চূড়ান্ত কাজ চলছে।

এ পর্যন্ত মূল সেতুর ৮০টি পাইল স্থাপন হয়েছে। এর মধ্যে নদীতে ৬৪টি টিউব পাইল এবং জাজিরা প্রান্তের তীরের সর্বশেষ ৪২ নম্বর পিলারের ১৬টি বোরেট পাইল। এসব পাইলের মধ্যে কংক্রিটিং হয়েছে ৩৪টি পাইল।

তবে হ্যামার সমস্যার সমাধান হলে মূল পদ্মা সেতুর কাজে আরো অনেক গতি ফিরবে বলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা আশ্বাস দিচ্ছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here