পুলিশের অপমান সইতে না পেরে এক স্কুল ছাত্রী আত্মহত্যার চেষ্টা

0
17

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর : পুলিশের অপমান সইতে না পেরে এক স্কুল ছাত্রী আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে। অভিযুক্ত ওই পুলিশ সদস্য সম্প্রতি জনৈক এক মহিলাকে ধর্ষনের চেষ্টা চালায়। এ সব অভিযোগে বুধবার তাকে যশোর পুলিশ লাইনে ক্লোজড করা হয়েছে। জানা গেছে, বাঘারপাড়ার ভিটাবল্ল্যা পুলিশ ফাঁড়ির টিআইসি জাহাঙ্গীর আলম বেশ কিছুদিন ধরে এক মহিলাকে কু প্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন। কু প্রস্তাবে ওই মহিলা রাজি না হওয়ায় গত ৪ ফেব্রুয়ারি গভীর রাতে ওই মহিলার বাড়িতে প্রবেশ করে জাহাঙ্গীর আলম।

এ সময় মহিলার স্বামীকে ঘুম থেকে জাগিয়ে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যায় জাহাঙ্গীরের সহযোগিরা। এরপর জাহাঙ্গীর আলম মহিলাকে জোর পুর্বক ধর্ষনের চেষ্টা করে। পরদিন মহিলা বাঘারপাড়ায় থানায় অভিযোগ করতে আসেন। এ সময় মহিলার মামা শ্বশুর বড় ভিটাবল্ল্যা গ্রামের আবুল কাসেম বিচারের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাকে ফিরিয়ে নিয়ে যান। এর আগে ১ ফেব্রুয়ারি ওই মহিলার বাড়ি যায় ভিটেবল্লা ফাঁড়ির টিআইসি জাহাঙ্গীর আলম।

এ ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই জাহাঙ্গীর আলম আরো একটি অঘটন ঘটান। জানা গেছে, ৭ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার বিকালে ভিটাবল্ল্যা গ্রামের আজিজুর রহমানের মেয়ে অষ্টম শ্রেণী পড়ুয়া ছাত্রী রুমিচা পারভিন ও তার বান্ধবী একই গ্রামের শহিদুল ইসলামের মেয়ে টুকটুকি বাড়ির পাশে গল্প করছিলো। এ সময় তাদের সাথে ছিলেন একই গ্রামের আজিম মোল্যার ছেলে জাকির হোসেন। কোন কারণ ছাড়াই ওই তিনজনকে টিআইসি জাহাঙ্গীর আলম আটক করে আনেন ফাঁড়িতে।

অনেক দেন দরবারের পর ৪ হাজার টাকার বিনিময়ে তাদেরকে ছাড়িয়ে নিয়ে যান অবিভাবকরা। এ অপমান সইতে না পেরে বুধবার সকালে রুমিচা বিষ পান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। বর্তমান সে বাঘারপাড়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শহীদ সরোয়ার জানান, ওই অভিযোগ পাওয়ার পর তাকে পুলিশ লাইনে ক্লোজড করা হয়েছে। ভিটাবল্লা গ্রামের মহিলার শ্লিলতা হানির স্বীকারোক্তির রেকড দেওয়া হল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here