কমিউনিটি সেফটি অ্যাওয়ারনেস র্শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

0
13
র্শীর্ষক কর্মশালা
র্শীর্ষক কর্মশালা

বিবিসি একাত্তর নিউজ-‘কমিউনিটি সেফটি অ্যাওয়ারনেস’ র্শীর্ষক কর্মশালা আজ দুপুরে খুলনা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনা জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসান।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় জেলা প্রশাসক বলেন, সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ বা¯তবায়নের মূল লক্ষ্যই হলো জনগণের দোরগোড়ায় সেবা পৌঁছে দেয়া। ৯৯৯ এই নম্বরটির মাধ্যমে মানুষ জরুরী সেবা ঘরে বসেই পেতে পারে। এর মাধ্যমে জরুরী মুহূর্তে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস এবং এ্যাম্বুলেন্স সেবা পাওয়া যাবে। সেবা প্রদানকারী সংস্থার কাছে প্রতিটি কলই গুরুত্বপূর্ণ তাই মজা করা কিংবা বিভ্রাšত করার জন্য এই নম্বরে কল করা ঠিক না। এ বিষয়ে নাগরিক সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে।

৯৯৯ জরুরী সেবা হচ্ছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের একটি উদ্যোগ। পরীক্ষামূলকভাবে এটি ফায়ার সার্ভিস, পুলিশী সাহায্য এবং এ্যাম্বুলেন্স সেবা নিয়ে কাজ করছে।  যে কোন মোবাইল নম্বর থেকে সম্পূর্ণ টোল ফ্রি কল করে বাংলাদেশের নাগরিকরা এই সেবা পাবেন। ৯৯৯ সার্ভিসের প্রশিক্ষিত প্রতিনিধিরা জরুরী মুহুর্তে প্রয়োজন অনুযায়ী নিকটবর্তী ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ অথবা এ্যাম্বুলেন্স সেবা প্রদানকারীর সাথে যোগাযোগ করিয়ে দেবেন।

৯৯৯ হেল্প ডেস্ক  মোবাইল এ্যাপস্ বা ওয়েবসাইট ব্যবহার করে আপনার বা আপনার নিকটবর্তী মানুষের জরুরী প্রয়োজনে কল সেন্টারে সরাসরি কথা বলতে পারবেন। আপনি সরাসরি ৯৯৯ প্রতিনিধির সাথে লাইভ চ্যাট করতে পারবেন এবং আপনার জরুরী প্রয়োজনে তথ্য পরামর্শ সেবা নিতে পারবেন।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(শিক্ষা ও আইসিটি) মোঃ গিয়াস উদ্দিন এর সভাপতিত্বে কর্মশালায় বক্তৃতা করেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার ওয়াসিম ফিরোজ, জেলা তথ্য অফিসের উপরিচালক ম. জাভেদ ইকবাল, পিআইডির সিনিয়র তথ্য অফিসার জিনাত আরা আহমেদ এবং কেএমপি’র সহকারী পুলিশ কমিশনার সোনালী সেন। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আইসিটি মন্ত্রণালয়ের ৯৯৯ এর প্রতিনিধি ও কো-অর্ডিনেটর মোসা. ফারজানা সুলতানা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here