খুলনা আলিয়া কামিল মাদরাসায় অচিরেই মাষ্টার্স কোর্স চালু হচ্ছে

0
18
মাষ্টার্স কোর্স চালু হচ্ছে
মাষ্টার্স কোর্স চালু হচ্ছে

বিবিসি একাত্তর নিউজ – খুলনা আলিয়া কামিল মাদরাসার অনার্স শ্রেণির শিক্ষার মানোন্নয়ন ও মাষ্টার্স শ্রেণির অনুমোদন সংক্রান্ত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মাদরাসা পরিচালনা পরিষদের সভাপতি ও খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান বলেছেন, এখন থেকে দেশের কোন মাদরাসা সরকারিকরণ হলে প্রথমেই খুলনা আলিয়া মাদরাসা হবে।

বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উন্নয়নের রূপকার আখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, তিনি দেশের মাদরাসা শিক্ষাকে যে গুরুত্ব দিয়েছেন তার অংশ হিসেবেই খুলনা আলিয়া মাদরাসার উন্নয়ন অতীতের সকল রেকর্ড ভঙ্গ করেছে। যার ধারাবাহিকতায় এ মাদরাসার অনার্স উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের যাতে অন্য কোথাও পড়তে যেতে না হয় সেজন্য অচিরেই মাষ্টার্স কোর্স চালু করা হবে। মাষ্টার্স কোর্স খোলার জন্য ইতোমধ্যে যে টিম পরিদর্শন করে গেছে ওই টিমের সদস্যরা জানিয়েছেন যে, দ্রæতই কার্যক্রম হাতে নেয়া হবে, যাতে অনার্স উত্তীর্ণরা এখানেই শিক্ষা জীবন শেষ করতে পারেন।গতকাল শনিবার দুপুরে খুলনা আলিয়া মাদরাসা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এ সভায় সভাপতিত্ব করেন, মাদরাসার অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা আবুল খায়ের মোহাম্মদ যাকারিয়া।
মাওলানা মোঃ আসাদুজ্জামানের পরিচালনায় এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন, খুলনা মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো: আসাদুজ্জামান রাসেল, পরিচালনা পরিষদের সদস্য আলহাজ্ব আনিসুল আসফিয়া ও আলহাজ্ব মাওলানা মো: ওয়াহিদুল্লাহ, শিক্ষক মাওলানা মো: মুশফিকুর রহমান, হাফেজ মুফতি মাওলানা মো: ইমরান উল্লাহ, মুফতি আব্দুর রহীম সর্দার, ড. রবিউল ইসলাম, আতাউর রহমান, মাওলানা শমসের আলী, মাওলানা সাইদ আহমেদ, অনার্সের ছাত্র মো: রবিউল ইসলাম রাফে, মো: আব্দুল আজিজ, মো: শফিকুল ইসলাম প্রমুখ।
এসময় নগর ছাত্রলীগ নেতা তাজমুল হক তাজ, খ,ম হেলালুজ্জামান, কামরুজ্জামান ইমরান, রফিকুল ইসলাম, শাহীন আলম, রুমান আহমেদ, মো: শাহীন, মিজানুর রহমান, সাইফুল ইসলাম, রহমত সরদার, চিন্ময় মন্ডল, শাহরিয়ার রাব্বি, ইবনুল হাসান, জুয়েল শেখ, সাইফুল ইসলাম, সাব্বির আহমেদ, ফাহাদ, হেলাল, আবু তাহের প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
প্রধান অতিথির বক্তৃতায় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান আরও বলেন, বৃটিশ ঔপনোবেশিক শাসন থেকে মুক্ত হয়ে বাংলার মানুষ এখন আধুনিক ও ধর্মীয় শিক্ষার মধ্যদিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। এক সময় বৃটিশরা এদেশের মানুষের মনের মধ্যে গোড়ামি ঢুকিয়ে দিয়ে ধর্মীয় শিক্ষা থেকে দূরে সরিয়ে রেখেছিল। কিন্তু এখন এটি প্রমাণিত হয়েছে যে, ধর্মীয় শিক্ষা ছাড়া পৃথিবীতে এমন কোন শিক্ষা নেই যা মানুষকে মুক্তি দিতে পারে। মাদরাসা শিক্ষার্থীরাই বেশি মেধাবী সেটিও প্রমাণিত হয়েছে বিভিন্নভাবে। সুতরাং আধুনিক এবং প্রযুক্তিগত শিক্ষার পাশাপাশি তিনি ধর্মীয় শিক্ষার মাধ্যমে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে নৈতিকতার আদলে গড়ে তোলার আহবান জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here