স্বাধীনতা দিবসে বিএনপির সংবর্ধণা ও আলোচনা সভা

0
10
স্বাধীনতা দিবসে বিএনপির

বিবিসি একাত্তর : – আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধ শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বীর উত্তর পরস্পর সম্পুরক। জাতিকে দিকনির্দেশনাহীন রেখে যারা আত্মসমর্পণ করেছিলেন, রণাঙ্গনের রক্তক্ষয়ী সশস্ত্র সংগ্রামে যাদের কোন অবদান নেই, তারাই শহীদ জিয়াকে ভয় পায়। তার কৃতিত্বকে ঈর্ষা করে।

আর সে জন্যই আজ ইতিহাসের বিকৃতি ঘটানো হচ্ছে। মাত্র এক ব্যক্তিকে মহানায়ক বানাতে গিয়ে তাদের নিজ দলের প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধারাও ইতিহাস থেকে হারিয়ে যেতে বসেছেন। দুঃসহ পরিস্থিতি থেকে গোটা জাতিকে মুক্তি দিতে স্বাধীনতার চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে আর একটি সংগ্রামের জন্য আমাদেরকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবেমহান স্বাধীনতা জাতীয় দিবস উপলক্ষে খুলনা মহানগর বিএনপি আয়োজিত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা এবংবাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ শহীদ জিয়ার স্বাধীনতার ঘোষণাশীর্ষক আলোচনা সভায় বক্তারা সব কথা বলেন।

সোমবার বিকেলে খুলনা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক খুলনা মহানগর সভাপতি সাবেক এমপি নজরুল ইসলাম মঞ্জুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চেয়ারপারসনের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য বর্ষিয়ান জননেতা এম নুরুল ইসলাম দাদু ভাই। প্রধান বক্তা ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা, কেসিসির মেয়র মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি। আলোচনায় অংশ নেন ভাষা সৈনিক এ্যাড. বজলুর রহমান, বার কাউন্সিলের সাবেক সদস্য এ্যাড. আব্দুল মালেক, শিক্ষাবীদ সাহিত্য গবেষক অধ্যাপক আব্দুল মান্নান, খুলনা মেডিকেল কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ডাঃ জাফরউল্লাহ, খুলনা প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ সভাপতি শেখ দিদারুল আলম।

অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম আসাদুজ্জামান মুরাদের পরিচালনায় বিএনপির নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কাজী সেকেন্দার আলী ডালিম, শেখ মোশারফ হোসেন, জাফরউল্লাহ খান সাচ্চু, সিরাজুল ইসলাম মেঝো ভাই ফখরুল আলম। অনুষ্ঠানে ১০ জন বীর মুক্তিযোদ্ধাকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। তারা হলেন মেয়র মনিরুজ্জামান মনি, আবুল কালাম আজাদ, আব্দুল মজিদ মাস্টার, আলাউদ্দিন তালুকদার, ফারুকুজ্জামান, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা জহুরুল হক খোকা, মহিউদ্দিন মোড়ল, আব্দুল

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here