খুলনা জেলা পরিষদ বিন্যামূল্যে সেলাই মেশিন বিতরণ

0
19
খুলনা জেলা পরিষদ
খুলনা জেলা পরিষদ
বিবিসি একাত্তর :খুলনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাবেক বিরোধীদলীয় হুইপ শেখ হারুনুর রশীদ বলেছেন, নারীরা সমাজের বোঝা নয় বরং তারা দেশের উন্নয়নের নিরব কারিগর। পৃথিবীর সৃষ্টির শুরু থেকে আজকের দিন পর্যন্ত নারীরা সমাজ ও রাষ্ট্রের জন্য গুরুত্বপূর্ন অবদান রেখেছেন। কিন্তু একটি গোষ্ঠি বিভিন্ন অপকৌশলে দীর্ঘদিন আমাদের দেশের নারীদের দাবিয়ে রাখার চেষ্টা করেছে। আমাদের দেশ সেই জায়গা থেকে আজ অনেক মুক্ত। আর সেটি সম্ভব হয়েছে বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরতœ শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হওয়ার সুবাদে। ২০২১ সালের মধ্যে দেশ বিশ্বে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে।

আর এটি সম্ভব হচ্ছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায়। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এই লক্ষপূরনের লক্ষ্যে ২০১৫-২০১৬ অর্থ বছরের অর্থায়নে ২৪০ জন বেকার ও দরিদ্র নারীদের মাঝে ২২.৮০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ক্রয়কৃত মোট ২৪০টি সেলাই প্রশিক্ষনার্থীদের বিনামূল্যে সেলাই মেশিন প্রদান করেন। যার ধারাবাহিকতায় নারী আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টির জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহন করে চলেছেন।

তিনি গত ১১ মার্চ রোজ মঙ্গলবার খুলনা জেলা পরিষদের উদ্যেগে অসহায় ও অসচ্ছল নারীদের আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে প্রশিক্ষন শেষে সেলাই মেশিন বিতরনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন। খুলনা জেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব মোঃ আলিম উদ্দিন ।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন প্রফেসর সৈয়দ সাদিক জাহিদুল ইসলাম, অধ্যক্ষ, সরকারী ব্রজলাল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, দৌলতপুর, জনাব হোসেন আলী খন্দকার, পরিচালক (ভাঃ), স্থানীয় সরকার, খুলনা বিভাগ, খুলনা, জনাব মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক), খুলনা। আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের নির্বাচিত সদস্যবৃন্দ জয়ন্তী রানী সরদার, শোভা রানী হালদার, ফারহানা নাজনীন, নাহার আক্তার, কবির হোসেন খাঁন, রজত কান্তি শীল, মোঃ জহুরুল হক, দিলীপ হালদার, অভিজিৎ চন্দ, শেখ মোশাররফ হোসেন (বাবু),

সরদার আবু সালেহ, মোঃ সাজ্জাদুর রহমান, মোল্লা আকরাম হোসেন, হাবিবুল্লা বাহার, শেখ কামরুল হাসান (টিপু), মোঃ আব্দুল মান্নান গাজী, এস.এম. খালেদীন রশিদী সুকর্ন, চৌধুরী মোহাম্মদ রায়হান ফরিদ, জেলা পরিষদের সচিব শৈলেন্দ্র নাথ মন্ডল, সহকারী প্রকৌশলী জনাব মোঃ হাফিজুর রহমান খান, প্রশাসনিক কর্মকর্তা জনাব মোঃ মিজানুর রহমান, উপ-সহকারী প্রকৌশলী জনাব বিপ্লব কুমার বিশ্বাস, তত্ত্বাবধায়ক, করোনেশন কারিগরী বিদ্যালয় জনাব আব্দুর রহিম-সহ অন্যান্য কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন মোঃ কামরুজ্জামান জামাল, সিনিয়র সাংগঠনিক সম্পাদক, মহিলা আওয়ামীলীগ নেত্রী হালিমা ইসলাম, জেলা সৈনিকলীগের সভাপতি এস. এম. ফরিদ রানাসহ বিশিষ্ট সমাজ সেবকগন এবং বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here