দরিদ্র ভ্যান চালক কিশোর বাড়ৈর জমি ও বসত ভিটা জোড়পূর্বক দখল

0
23
citolmari

সেলিম মৃধা বিশেষ প্রতিনিধি: চিতলমারী বাগেরহাট থেকে ফিরে বাগেরহাটস্থ চিতলমারী উপজেলার সুড়িগাতী গ্রামের দরিদ্র ভ্যান চালক কিশোর বাড়ৈ ওরফে ভোলার বিলান জমি ও বসত ভিটা জোড়পূর্বক দখল করার অভিযোগ উঠেছে। ভূক্তভোগী ভোলার মা চপলা রানী বাড়ৈ জানান, পার্শ্ববর্তী চৌদ্দ হাজারী গ্রামের বাসিন্দা সুদ ব্যবসায়ী, বর্তমান উপজেলা বঙ্গবন্ধু কলেজের সহকারী অধ্যক্ষ ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি, মৃতঃ সরোয়ার তালুকদারের পুত্র,শওকত তালুকদার ২০০৪ সালে দেড় বিঘা বিলান জমি ও বসত ভিটা দখলের উদ্দেশ্যে একটি জাল দলিল তৈরি করে।

২০০৬ সালের মাঝামাঝি সময়ে ভোলার জমিতে গিয়ে মাটি কাটতে শুরু করে। এ সময় ভোলার পরিবার বাধা দিতে গেলে শওকতসহ তার লোকজন বলে, সে ভোলার কাছ থেকে টাকার বিনিময় জমি দলিল করে নিয়েছে। এ ঘটনায় ভোলার বৃদ্ধ মা চপলা রানী ভোলাকে বাদী করে বাগেরহাট যুগ্ম জেলা জজ, ২য় আদালতে একটি মামলা দায়ের করে। দীর্ঘ ১০ বছর পর গত ২০১৫ সালের ৭ই জুলাই বিজ্ঞ আদালত শওকত তালুকদারের দলিলটি জাল, তঞ্চকী মর্মে ভোলার পক্ষে রায় ঘোষনা করেন।

শওকত তালুকদার আদালতের রায় অগ্রাহ্য করে ভোলার পরিবারকে বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি প্রদর্শন করলে ভোলার পরিবার গত ১৭/০৭/২০১৫ ইং তারিখে চিতলমারী থানায় একটি সাধারণ ডাইরী করে। যাহার নম্বর ৫৯৮, তাং ১৭/০৭/২০১৫ ইং। ঘটনাটি তাৎক্ষণিক সংশ্লিষ্ট থানাকে জানালেও থানা কর্তৃপক্ষ কোন কর্ণপাত না করায় বিষয়টি উপজেলা ইউ, এন, ও কে জানালে তিনি পুলিশ সুপারের কাছে যেতে পরামর্শ দেন। পরে ২১/০৪/২০১৬ ইং তারিখে বাগেরহাট পুলিশ সুপারের কাছে এই ঘটনা বর্ণনা করে একটি স্মারকলিপি প্রদান করে ভূক্তভোগী পরিবার।

এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে বহুদিন পর গত ২০১৭ সালের ৫ই জুলাই সকাল সাড়ে ৮টায় শওক দলবল নিয়ে সজ্জিত হয়ে ভোলার জমিতে প্রবেশ করে। ভোলার মা ও তার স্ত্রী জয়ন্তী বাড়ৈ বিষয়টি জানতে পেরে ঘটনাস্থলে আসলে তাদের মারধর সহ গালিগালাজ করার পাশাপাশি জমিতে থাকা বিভিন্ন প্রকার শাক-সবজীর গাছ উপড়ে ফেলে দেয়। ভুক্তভোগীরা বর্তমানে চরম আতংক গ্রস্থ হয়ে দিনাতিপাত করছে বলে জানা গেছে। এ ব্যাপারে দোষীদের বিরুদ্ধে সঠিক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সংশ্লিষ্ট মহলের উদ্ধতন কর্তৃপক্ষের আশুহস্তক্ষেপ কামনা করছেন ভূক্তভোগী অসহায় পরিবারবর্গ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here